News

Bangladesh seeks duty-free and quota-free facilities in Brazil

Summary

Bangladesh seeks duty-free and quota-free facilities in Brazil

Updated on : 13-02-2018


Bangladesh seeks duty-free and quota-free facilities in Brazil

ব্রাজিলের বাজারে তৈরি পোশাকের শুল্ক ও কোটামুক্ত সুবিধা দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ। রবিবার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের নিজ কার্যালয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন ঢাকায় নিযুক্ত ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূত জও তাবাজোরা ডি. ওলিভেইলা জুনিয়র। এ সময় বাণিজ্যমন্ত্রী এ দাবি জানান।

সাক্ষাৎ শেষে তোফায়েল আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘ব্রাজিলের বাজারে বাংলাদেশের তৈরি পোশাকের ব্যাপক চাহিদা আছে। কিন্তু সেদেশে শুল্ক অনেক বেশি। তাই ব্রাজিলকে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) শর্ত অনুযায়ী শুল্ক ও কোটামুক্ত সুবিধা দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছি। তাদের জানিয়েছি, চিলিসহ বিশ্বের অনেক দেশ তৈরি পোশাক রফতানিতে বাংলাদেশকে শুল্ক ও কোটামুক্ত সুবিধা দেয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘ব্রাজিল যদি বাংলাদেশকে শুল্ক ও কোটামুক্ত সুবিধা না দেয় তাহলে আমাদের সঙ্গে ফ্রি ট্রেড এগ্রিমেন্ট (এফটিএ) করার প্রস্তাবও দিয়েছি। এ চুক্তি হলে উভয় দেশ শুল্ক বা কোটামুক্ত পণ্য রফতানি করতে পারবে। এফটিএ সই হলে ব্রাজিলের বাজারে বাংলাদেশের পোশাক স্থান করে নিতে পারবে। শিগগিরই আমরা ব্রাজিলের সঙ্গে এফটিএ নিয়ে আলোচনা শুরু করবো। আমাদের প্রতিনিধি দল এ বিষয়ে আলোচনা করতে আগামী বছর ব্রাজিল সফর করবে।’

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ব্রাজিলকে বাংলাদেশের একশটি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগের প্রস্তাব দিয়েছি। বাংলাদেশের চামড়া, চামড়াজাত পণ্য ও জুতার প্রতি ব্রাজিলের বেশ আগ্রহ আছে।’

ঢাকায় নিযুক্ত ব্রাজিলের রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘আমরা দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য বিনিময় করতে চাই। আগামী বছরের মার্চ মাসে বাণিজ্য বাড়াতে উভয় দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা শুরু হবে।’

উল্লেখ্য, ২০১৪-১৫ অর্থবছরে বাংলাদেশ থেকে ব্রাজিলে ২০৩ মিলিয়ন ডলারের পণ্য রফতানি করা হয়। বিপরীতে আমদানি করা হয় ৯২৭ দশমিক ৮০ মিলিয়ন ডলারের পণ্য। ওই বছর বাণিজ্য ঘাটতি ছিল ৭২৪ দশমিক ৭৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এছাড়া ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ঘাটতি ছিল ৮১৬ দমমিক ৭০ মিলিয়ন ডলার এবং ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে এক হাজার ৩৬ দশমিক ৫৬ মিলিয়ন ডলার।

দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য ঘাটতি বাড়ছে কেন- এমন প্রশ্নের জবাবে তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কমে যাওয়া এবং ডলারের অবমূল্যায়নের কারণে বাণিজ্য ঘাটতি বেড়েছে। আগামী বছরগুলোতে এ ঘাটতি কমে আসবে।’

(সৌজন্যে:বাংলা ট্রিবিউন)


Most Recent News

TitleCategoryCreated On
Import/Export2020-08-17 04:56:56
Investment2020-08-16 02:17:05
General2020-08-11 13:38:11
Trade2020-02-12 06:39:13
Import/Export2019-11-25 00:44:38

Search All News

Member Area

Search this Site
Upcoming Events